Mr. Nobody Explained and Review Bangla

bsubtuneJanuary 25, 2021

Movie Name: Mr. Nobody

Imdb: 7.8

Rotten Tomatoes: 68%

Cast: Jared Leto, Jaco Van

এক্সপ্লেনেশন | থিওরি | প্যারাল্লাল লাইফ/ওয়ার্ল্ড | দ্যা বাটারফ্লাই ইফেক্ট | টাইম রিসেট।

এক্সপ্লেনেশন এর দুয়ার খুললে একে একে শত শত মুভি এক্সপ্লেইন এর প্রয়োজন হয়। থাক শত শত মুভিতে না যাই। আপাতত Mr. Nobody এক্সপ্লেইন করি। মোটামুটি বেশ ক্রিপি একটি প্লট এ নির্মিত এই মুভিটি , সকলের নিকট ভালো নাও লাগতে পারে। তবে এটি একটি মাস্টারপিস ও বটে।

✔ প্যারাল্লাল ইউনিভার্স , টাইম রিসেট , কোয়ান্টাম থিওরি , ইমেজিনেশন , রোম্যান্স , ড্রামা , থ্রিলার , সাইন্স ফিকশন ইত্যাদি সবগুলো বিষয় নিয়ে এই মুভিটির প্লট নির্মিত।

➡ প্যারাল্লাল ইউনিসভার্সঃ- আমাদের রিয়্যাল লাইফকে যদি আরেকটা লাইফের সাথে তুলনা করেন তাহলে সেটা প্যারাল্লাল বা অন্য আরেকটি ইউনিভার্স হিসেবে ধরতে পারেন । আপনি পেরাল্লাল ইউনিভার্স কে After Life (পরকাল) , স্বপ্ন অথবা যেভাবে ইচ্ছে মনে করতে পারেন। অর্থ্যাৎ , রিয়্যাল লাইফ ব্যাতিত অন্য আরেক লাইফ যেটা আপনার বর্তমান লাইফের বিপরীতে চলছে।

➡ টাইম রিসেটঃ- মহাবিশ্বের / পৃথিবীতে সবকিছুই ক্ষণস্থায়ী । কোন কিছুই চিরস্থায়ী নয় । একটা নির্দিষ্ট সময়ের পর সবকিছুই রিসেট হয় । তেমনি কোন এক অবস্থায় সময় ও থেমে গিয়ে আবারো সময় উল্টো দিকে মোর নিবে । এটা পুরোটাই সাইন্সের কাল্পনিক ব্যাখ্যা। আপনি যদি সাইন্স নিয়ে পড়ে থাকেন স্কুল কলেজে , তাহলে আশা করি আপনারা #Big_Bang এর সম্পর্কে জানেন । স্টিফেন হকিং ও বিষয়ে অনেক মতবাদ দিয়েছেন।

এবার মুভির মূল বিষয়ে আসছিঃ-
মুভিতে বুড়ো , যুবক , কিশোর , বাচ্চা মোট ৪ টি অবস্থায় একজন ব্যাক্তিকেই একই সময়ে দেখানো হয় । ৪ টিই কিন্তু একে অপরের প্যারাল্লাল ইউনিভার্স। এখন এটাকে প্যারাল্লাল ইউনিভার্স না বলে ৪ টি মাইন্ড বা ১ টি মাইন্ডে ৪ টি লাইফলাইন বিদ্যমান বলা যেতে পারে। কারণ , একজন ব্যাক্তি তো আর ৪ টা ইউনিভার্সে থাকতে পারেনা । মুভিতে দেখানো হয় যে , তার পিতা-মাতা দু’জন আলাদা হতে যাচ্ছে । এখন Nemo (Mr Nobody) বাচ্চা ছেলেটি কার সাথে যাবে? বাবার সাথে নাকি মায়ের সাথে?

ঠিক তখনই আসল ব্যাপার টা ঘটলো । বাচ্চাটি কনফিউজড হয়ে যায় , কার সাথে যাবে। কার সাথে গেলে তার ভবিষ্যৎ কেমন হবে।
মুভিতে দেখানো হয় যে , সর্গে বাচ্চাদের ভবিষ্যৎ দেখার ক্ষমতা থাকে। কিন্তু অ্যাঞ্জেল রা বাচ্চাদের ঠোঁটে আঙ্গুল রাখলে বাচ্চারা ভবিষ্যৎ ভুলে যায়। কিন্তু , দূর্ভাগ্যবশত নিমো র ঠোঁটে আঙ্গুল রাখতে ভুলে যায়। তাই নিমোর সব মনে থাকে। সে ভবিষ্যৎ দেখার ক্ষমতা নিয়েই জন্ম নেয়।
এটা তো ক্লিয়ার যে , বাচ্চাটি ভবিষ্যৎ দেখতে পারতো । তাই সে দুইটা ভবিষ্যৎ দেখলো । বাবার সাথে গেলে কি হবে , আর মায়ের সাথে গেলেই বা কি হবে।

এতে সে সফল ও হয়েছে । এই পর্যন্ত সবাই বুঝেছে। এগুলো সব প্যারাল্লাল ইউনিভার্স বা তার মাইন্ডের চিন্তাগুলো ছিলো ছিল । কারণ , সব ই তার কাল্পনিক জগতে ঘটেছে । তাহলে যে বুড়ো Nemo ছিল , সে কিভাবে বুড়ো হলো? এতো বছর বেঁচে ই বা ছিলো কি করে?

আসলে সে বুড়ো হয় ই নাই । সে সেই ছোট ছেলেটির ভাবনার মাঝে আছে । আর সেই প্যারাল্লাল ইউনিভার্সে সে অমর । মানে সে কখনও মরবে না । এর কারন হলো , বাচ্চাটি কল্পনার জগতে তাকে অমর দেখতে চেয়েছে । সেও ওই বাকি দুইটা লাইফের মতোই। জাস্ট তাকে অমর রাখা হয়েছে।
এবার বলবো মুভিতে প্যারাল্লাল ইউনিভার্সে যাওয়ার প্রয়োজন হল কেনো?

১) বিভিন্ন বয়সের স্বাদ নিতে । মানে কোন বয়সে কেমন অনুভূতি।
২) কোন ইউনিভার্সের ভবিষ্যত কেমন হবে তা জানতে।
৩) জীবনকে বিভিন্ন পদে কোন কারণে কোন ঘটনা সংগ্রীহিত হচ্ছে তা জানতে।

উদাহরণঃ- ধরুন , আপনার দাঁত ভেঙ্গে গিয়েছে পাউরুটি খেতে গিয়ে । এর কারণ হতে পারে , রুটিতে কোন একটা ছোট পাথর ছিলো । পাথর টা কোথা থেকে আসলো তাহলে? নিশ্চই আটা/ময়দা থেকে । আটা ময়দা কোথা থেকে আসলো? যেখানে চাল গম ভাঙ্গায় । সেখানে কি আনা হয়? গম যব চাল এসব । এগুলো কই পাওয়া যায়? ক্ষেতে? ক্ষেত থেকে চাল নেয়ার সময় হতে পারে কোন একটি পাথর সাথে চলে গিয়েছিলো । আর সেটা হয়তো ভাঙ্গানোর পরেও সাথে রয়ে গিয়েছিলো। যেকোন কারণ হতে পারে । কিন্তু ফল হয়ে দাঁড়ায় – দাঁত ভাঙ্গা ।

ঠিক এভাবে বিভিন্ন ঘটনা ঘটার জন্য বিভিন্ন কারণ দায়ী থাকে । মুভি হতেই আরেকটি কারণ দেখাচ্ছিঃ-

– অভিনেতার প্রেমিকা তাকে তার ফোন নাম্বার লিখে দিয়েছে কাগজে । তারপর সে চলে যায় । প্রেমিকার সাথে যোগাযোগ করার একমাত্র মাধ্যম সেই ফোন নাম্বার টি ই । কিন্তু হঠাৎ ই এক ফোটা বৃষ্টির পানি এসে সেই কাগজে পরে। ব্যস! পানির ফোটায় মুছে যায় ফোন নাম্বার । তখন অতীতে গিয়ে দেখা যায় যে , বিশ্বের অন্য প্রান্তে এক লোক ডিম সিদ্ধ করছিলো । সেই ডিম সিদ্ধের জলীয় বাষ্প মেঘ হয়ে > বৃষ্টি > বৃষ্টির এক ফোটা পানি পরে অভিনেতার হাতের সেই কাগজটি ভিজে যায় আর নষ্ট হয়ে যায় ফোন নাম্বার লিখা ওই কাগজটি

এই বিষয়টি বুঝতে হলে প্রয়োজন The Butterfly Effect. পৃথিবীতে আমরা সব সময় প্রতিনিয়ত বিভিন্ন ডিসিশন নিয়ে থাকি। কখনো সেটা ভুল হয় , আবার কখনো সঠিক। ক’মাস আগে আগুন লেগছিলো বনানীতে। যারা মারা গিয়েছেন , তাদের মধ্যে কেউ যদি আগুন লাগার এক সেকেন্ড আগেও বেরিয়ে যেতো , আজ সে জীবিত থাকতো। এটিই বাটারফ্লাই ইফেক্ট। কোন ইনসিডেন্ট এর জন্য লাইফলাইনের কোনো অংশ পরিবর্তন কেই বাটারফ্লাই ইফেক্ট নামে পরিচিত।

Mr. Nobody ফিল্ম ও সেম টাইমলাইনের উপর নির্মিত। কোন ডিসিশন টি নিলে কি হবে , কোন কারণে কি পরিবর্তন হবে। ঠিক এমনি কোন কিছুর কারণে তা অন্য কিছুর উপর প্রভাব পরলে , তাকে বাটারফ্লাই ইফেক্ট বলে।

❎ মগজ ধোলাই করতে এই টাইপের মুভি যথেষ্ট । মুভিটি বুঝতে হলে অবষ্যই ঠান্ডা মাথায় বসে একটু ভেবে চিন্তে দেখতে হবে । এখানে সময়ের অনেকগুলো ব্যাপার আছে । সেগুলো খেয়াল রাখতে হবে ।
◼ আর মুভির সবচেয়ে আকর্ষনীয় দিক । বুড়ো কেনো মরলো না? অমর কেনো?

◼ উত্তরঃ- বুড়োর মরার সময় ৫:৫০ মিনিট । কিন্তু এদিকে টাইম রিসেট হয়ার সময়টাও ৫:৫০ মিনিট । ব্যাস! বুড়ো মরেও মরলো না । কারন , সময় তাকে আবারো অতীতে নিয়ে যায়। টাইম রিসেট হওয়ার ফলে সে জাগ্রত থেকে যায় আর পেয়ে যায় অমরত্ব।

ধন্যবাদ আর্টিকেল টি পড়ার জন্য ❤️
©রিভিউ এন্ড এক্সপ্লেনেশন বাই কাউসার আহমেদ

Categories
Tags

Leave a comment

Name *
Add a display name
Email *
Your email address will not be published
Website